শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরি করার কিছু টিপস

আজকাল আমরা ফেসবুক, টুইটার, জিমেইল, ইন্সটাগ্রামসহ আরো অনেক অ্যাপস আমাদের স্মার্টফোনে ব্যবহার করে থাকি। এসব অ্যাপসে অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে আমাদের পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে হয়। এক্ষেত্রে হ্যাকারদের হাত থেকে নিজের অ্যাকাউন্টটি নিরাপদ রাখার জন্য ব্যবহৃত পাসওয়ার্ডটি অবশ্যই শক্তিশালী হতে হবে। আর এতসব অ্যাপসের পাসওয়ার্ড মনে রাখাও সহজ কাজ নয়।

নিজেদের ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টগুলো হ্যাকারের কাছ থেকে নিরাপদ রাখার জন্য শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরির কিছু টিপস এখানে উল্লেখ করা হলো:

* নতুন পাসওয়ার্ড তৈরির সময় অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে একই পাসওয়ার্ড যেন একাধিক অ্যাপসে ব্যবহার করা না হয়। কারণ এক্ষেত্রে যদি একটি অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে যায় তাহলে অন্য অ্যাকাউন্টটিও রিস্কে থাকে।

কাজেই শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরির প্রথম টিপস হলো একই পাসওয়ার্ড যেন একাধিক অ্যাপসে ব্যবহৃত না হয়।

* নতুন পাসওয়ার্ড তৈরির সময় নিশ্চিত করতে হবে যে পাসওয়ার্ডে নিজের বা পরিবারের কোন সদস্যের নাম নেই। কারণ এভাবে পাসওয়ার্ড তৈরি করলে হ্যাকারদের অ্যাকাউন্ট হ্যাক করতে সুবিধা হয়। পাসওয়ার্ড হিসেবে নিজের মোবাইল নম্বর এবং ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডের পিন নম্বরও ব্যবহার করা উচিত নয়।

* পাসওয়ার্ড তৈরি করার জন্য জন্মদিন বা বিয়ের দিন ব্যবহার করা উচিত নয়। কারণ এভাবে তৈরি করা পাসওয়ার্ড হ্যাকরা খুব সহজেই হ্যাক করতে পারে এবং খুব সহজেই একজনের ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করে নিতে পারে।

* পাসওয়ার্ড তৈরির সময় আরো মাথায় রাখতে হবে যে, পাসওয়ার্ড হিসেবে পাসপোর্ট নম্বর, জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর বা অন্য এমন কোন নম্বর ব্যবহার করা যাবে না যা আপনার বন্ধু বা আত্মীয় স্বজনরা জানে।

* পাসওয়ার্ড তৈরির সময় আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় মনে রাখা উচিত যে, নতুন পাসওয়ার্ড হিসেবে পুরোনো কোন পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা যাবে না। কারণ এসব পাসওয়ার্ড হ্যাকারদের আগে হ্যাক করা কোন ডাটাবেসে থেকে যেতে পারে।

* নতুন তৈরি করা পাসওয়ার্ডটি অনলাইনে বা ইমেইলের ড্রাফটে সেভ করা যাবে না। পাসওয়ার্ডটি এমন কোন ডিভাইসে সেভ করতে হবে যা কখনো ইন্টারনেটের সাথে সংযুক্ত করা হবে না এবং পরিবারের কোন সদস্য এটি ধরবে না।

* পাসওয়ার্ড তৈরি করার পর পাসওয়ার্ডটি অবশ্যই কয়েক মাস পর পর পরিবর্তন করতে হবে। তাহলে হ্যাকররা সহজেই আর অ্যাকাউন্ট হ্যাক করতে পরবে না।