গোল্ডেন মনিরের বিরুদ্ধে ৩টি মামলা; ২১ দিনের রিমান্ড চেয়েছে পুলিশ

অবৈধ অস্ত্র, মাদক ও বৈদেশিক মুদ্রা রাখার অভিযোগে মনির হোসেন ওরফে ‘গোল্ডেন’ মনিরের বিরুদ্ধে তিনটি মামলা করেছে র‌্যাব।

বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. পারভেজ ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অস্ত্র, মাদক ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে মনিরের বিরুদ্ধে ৩টি মামলা হয়েছে। এই তিন মামলায় ২১ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।

বেলা ৩টার পর ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবুবকর ছিদ্দিকের আদালতে অস্ত্র ও বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলার শুনানি হবে।

আর মাদক আইনের মামলার শুনানি হবে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ-উর রহমানের আদালতে।

এদিন দুপুরে মনিরকে আদালতে হাজির করে অস্ত্র ও বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা বাড্ডা থানার পরিদর্শক (অপারেশন) ইয়াসীন গাজী ও মাদক মামলার তদন্ত কর্মকর্তা একই থানার উপ-পরিদর্শক জানে আলম দুলাল ৭ দিন করে মোট ২১ দিনের রিমান্ড চান।

উল্লেখ্য, শনিবার আটক করার পর র‌্যাব-৩ কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয় গোল্ডেন মনিরকে। এরপর বাড্ডা থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয় তাকে।

এর আগে একটি গোয়েন্দা সংস্থার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে মেরুল বাড্ডার ডিআইটি প্রজেক্টে মনিরের বাসায় শুক্রবার রাতে অভিযানে যায় র‌্যাব। ছয়তলা বাড়িতে শুক্রবার মধ্যরাতে শুরু হয়ে শনিবার সকাল পর্যন্ত অভিযান চলে।

অভিযানে মনিরের বাড়ি থেকে ১ কোটি ৯ লাক্ষ টাকা, ৪ লিটার মদ, ৮ কেজি স্বর্ণ, একটি বিদেশি পিস্তল, কয়েক রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। অস্ত্র ও মদের পাশাপাশি ৯ লাক্ষ টাকা মূল্যের ১০ দেশের বৈদেশিক মুদ্রা জব্দ করেছে র‌্যাব।

র‌্যাব কর্মকর্তারা জানান, মনিরের বাড়িতে পাঁচটি গাড়ি পাওয়া গেছে, যার মধ্যে তিনটি গাড়ির বৈধ কাগজপত্র নেই বলে সেগুলো জব্দ করা হয়েছে।

মনিরের ১ হাজার ৫০ কোটি টাকার ওপর সম্পদের তথ্য পাওয়ার কথা জানিয়েছে র‌্যাব। এ ছাড়া বাড্ডা, নিকেতন, কেরানীগঞ্জ, উত্তরা, নিকুঞ্জে দুশর বেশি নামে-বেনামে প্লট রয়েছে মনিরের।

রাজউকের সিল নকল করে ভূমিদস্যুতার একটি এবং দুদকেরএকটি মামলা রয়েছে মনিরের বিরুদ্ধে। তিনি একটি রাজনৈতিক দলের ‘অর্থ জোগানদাতা’ বলেও ইঙ্গিত দিয়েছেন র‌্যাব কর্মকর্তারা।

Leave a Reply