মেডিটেশন শুরুর আগে করণীয়

কিছু মানুষ মেডিটেশনকে একটি কঠিন কাজ হিসাবে ভাবেন। তবে এই মেডিটেশনের অর্থ হলো উপায় বা মাধ্যম যা দিয়ে আপনি জীবনের প্রতিদিনের স্ট্রেস এবং আপনার কাছে ভয়ঙ্কর বলে মনে হওয়া সমস্ত কিছু থেকে রক্ষা পেতে পারেন। মেডিটেশনের জন্য আপনি যে কয়েক মিনিট সংরক্ষণ করেন তা হ’ল পরম সুখের মুহূর্ত। বিশেষজ্ঞরা বলেছেন যে মেডিটেশনের পুরো প্রক্রিয়াটি আপনাকে আনন্দ, সন্তুষ্টি, শান্তির বোধ এবং ফোকাস দেয়।

আপনি যদি ভাবেন যে আপনি লড়াই করে যাচ্ছেন এবং নিজেকে বিরক্তি থেকে মুক্ত করতে চান, তাহলে মেডিটেশন আপনার জন্য।

মেডিটেশন শুরুর আগে কিছু করণীয় সম্পর্কে এখানে ধারণা দেওয়া হলো:

* নিজেকে প্রস্তুত করা: মেডিটেশনের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে প্রথমে যে কাজটি করতে হবে তা হল, যে কেউ ধ্যান করতে পারে এই বিষয়টি বোঝা, এবং এটি আসলে খুব কঠিন কাজ নয়।

* সময় নির্বাচন: খুবই গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। সময় নির্বাচনের ক্ষেত্রে মাথায় রাখতে হবে যে, এটি দৈনন্দিন রুটিনের একটি ধারাবাহিক অংশ। তাই দিনের একটি উপযুক্ত সময় বেছে নিতে হবে, যখন আপনি স্থির হয়ে বসতে পারবেন এবং মেডেটেশন করতে পারবেন।

* উপযুক্ত সময়: মেডিটেশন যদিও দিনের যেকোন সময় করা যায়, তবুও মেডিটেশনের সময়টি সকালে হলে সবচেয়ে ভালো হয়। কারণ মেডিটেশন দিয়ে দিন শুরু হলে সারাদিন মন ফুরফুরে থাকে এবং দক্ষতার সাথে কাজ করা যায়।

* ফলাফল আশা করা: মেডিটেশন শুরু করার সাথে সাথেই ফলাফল আশা করা যাবে না। যদিও মেডিটেশনে মন নিয়ন্ত্রন করার নিয়ম সকলের ক্ষেত্রে একই, কিন্তু বিভিন্ন ব্যক্তি বিভিন্নভাবে মেডিটেশনের অভিজ্ঞতা নিয়ে থাকে।

* নিয়মিত মেডিটেশন করা: মানসিকভাবে দৃঢ় ও সুস্থ থাকার জন্য নিয়মিত মেডিটেশন করতে হবে। যদি নিয়মিত মেডিটেশন না করা হয় তাহলে এর কার্যকর ফলাফল পাওয়া যাবে না। তাই এটিকে অভ্যাস হিসেবে গড়ে তুলতে হবে এবং কোনভাবেই বাদ দেওয়া যাবে না।

* স্থান নির্বাচন: মেডিটেশনের স্থানটি এমন হতে হবে যেখানে বসে এক দিন বা দুই দিন নয় বরং সারা বছর যেন ঐ স্থানে বসে মেডিটেশন করা যায়। মেডিটেশনের জন্য নিরিবিলি স্থান নির্বাচন করা সবচেয়ে ভালো।

* মেডিটেশন শুরুর আগের কাজ: মেডিটেশন শুরুর আগে মোবাইলটি সুইচ অফ বা সাইলেন্ট মোডে আছে তা অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে। তারপর সোজা হয়ে বসতে হবে, মনে রাখতে হবে বসার জন্য একটু শক্ত ও আরামদায়ক স্থানে বসতে হবে। মোট কথা আপনি কেমন অনুভব করছেন তা মূল্যায়ন করে শুরু করুন।

* মেডিটেশনের সময়: প্রথম দিন আপনি যদি এক মিনিটও বসে থাকেন তবে ঠিক আছে। আপনার ধ্যানের সময় দীর্ঘ করার জন্য ধীরে ধীরে আপনার নিজের মতো করে কাজ করুন। তবে এতে ঝাঁপিয়ে পড়বেন না এবং নিজেকে জোর করবেন না।

* ফোকাস ঠিক করা: প্রথম দিকে মন বিক্ষিপ্ত হতে পারে। মেডিটেশনের সময় ভাবনা আসা ঠিক আছে, কারন, এ সময় মনকে বিচরণ করতে দিতে হবে। শুধু আপনার শ্বাস-প্রশ্বাসের উপর ফোকাস রাখতে হবে এবং আপনার চিন্তা ভাবনাকে এর উপর ফোকাস করতে হবে।

* মেডিটেশন শেষে: আপনার মেডেটেশন শেষ হয়ে গেলে, আপনার দিনটি শুরু করার জন্য ছুটে যাওয়ার আগে আপনি কেমন অনুভব করছেন তা বোঝার জন্য কিছুক্ষণ সময় নিন।