নাইজেরিয়ায় স্কুলে হামলার ঘটনায় অপহৃত ৩৪৪ শিক্ষার্থী উদ্ধার

নাইজেরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের কাতসিনা রাজ্যের  একটি সরকারি মাধ্যমিক স্কুলে হামলা চালিয়ে অপহরণ করা ৩৪৪ জন শিক্ষার্থীকে মুক্তি দিয়েছে ইসলামিক জঙ্গিগোষ্ঠী বোকো হারাম। মুক্তি দেওয়া সবাই এখন সুস্থ ও স্বাভাবিক আছে। তবে গোষ্ঠীটির হাতে এখনো কোনো শিক্ষার্থী আটকে আছে কি না, তা স্পষ্ট নয়।

এর দুদিন আগে মঙ্গলবার অন্তত ১৭ শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করা হয়েছিল। তবে সে দিনের উদ্ধার অভিযানকালে দুই শিক্ষার্থী মারা যায়।

এদিকে বৃহস্পতিবার বোকো হারামের প্রকাশ করা একটি ভিডিও বার্তায় অপহৃত এক শিক্ষার্থীকে বলতে শোনা যায়, ৫২০ জন শিক্ষার্থীকে অপহরণ করা হয়েছে। এ দিন নিরাপত্তা বাহিনীর একটি সূত্র বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছে, অপহৃত শিশুর সঠিক সংখ্যা বলতে পারছেন না কেউ। অপহরণের পর এই শিশুদের ক্যাটসিনা রাজ্যের কাছে ইয়াংকারা ও জামফারায় নিয়ে যাওয়া হয়। সূত্রটি আরও বলেছে, ঠিক কতজন এখন পর্যন্ত উদ্ধার হয়েছে, তা–ও পরিষ্কার নয়।

কাতসিনা রাজ্যের মুখপাত্র আবদুল লাবরান জানান, ওই স্কুলছাত্রদের দেশটির আঞ্চলিক রাজধানী কাতসিনা সিটিতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে এবং খুব শিগগিরই তাদের পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেয়া হবে। তবে কেন তাদের মুক্ত করা হয়েছে সে বিষয়ে ‍ নিশ্চিত জানা যায়নি। 

গত শুক্রবার কাতসিনার  বিদ্যালয়টিতে হামলা চালায় বন্দুকধারীরা । সেসময় নিরাপত্তাকর্মীদের সঙ্গে তাদের  বন্দুকযুদ্ধ হয়। প্রাণ বাঁচাতে আশপাশের  জঙ্গলে পালিয়ে যায় শিক্ষার্থীরা। ওই সময় তিন শতাধিক শিক্ষার্থীকে অপহরণ করে নিয়ে যায় বোকো হারাম । গত মঙ্গলবার এই হামলার দায় স্বীকার করে নিয়েছে তারা।

এর আগে ২০১৪ সালে নাইজেরিয়া চিবক এলাকার শতাধিক ছাত্রীকে অনেকটা একইভাবে অপহরণ করেছিল বোকো হারাম।