দেশের সর্বশেষ জেলা রাঙ্গামাটিতে ৪ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত করা হয়েছে। বুধবার সিভিল সার্জন ডা. বিপাশ খীসা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গত ২৯ এপ্রিল তাদের নমুনা সংগ্রহ করে চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজেজেজে (বিআইটিআইডি) পাঠানো হয়েছিল। রিপোর্টে সবার করোনা পজিটিভ এসেছে।

আক্রান্তরা রাঙ্গামাটির রিজার্ভ বাজার, দেবাশীষ নগর ও বাকী দু’জন সদর হাসপাতাল এলাকার বাসিন্দা। এর মধ্যে ৯ মাসের শিশু একজন, ১৯ বছরের যুবক, ৩৮ বছরের নারী ও ৫০ বছর বয়সী পুরুষ। তারা সবাই রাঙ্গামাটি জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সিভিল সার্জন ডা. বিপাশ খীসা বলেন, ‘এ বিষয় নিয়ে জরুরি বৈঠক ডাকা হয়েছে। আক্রান্তদের সাথে যারা সংস্পর্শে এসেছেন তাদের খুঁজে বের করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। যাতে করে শহরে করোনার সংক্রমণ বাড়তে না পারে।’

এই বিষয়ে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ জানান, আক্রান্ত ব্যক্তিদের এলাকা লকডাইন করা হয়েছে। এছাড়া তাদের নমুনা আবারো চট্টগ্রামে পাঠানো হবে।

এদিকে, রাঙ্গামাটি জেলায় করোনা ভাইরাস শনাক্ত হওয়ার কারণে প্রশাসনের পক্ষ থেকে আক্রান্তদের বাড়ি লকডাইন করার প্রস্তুতি গ্রহণ করা হচ্ছে বলে জানান এনডিসি উত্তম কুমার দাশ।

রাঙ্গামাটি জেলায় ২ হাজার ৫ জনের কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। এর মধ্যে ছাড়পত্র পেয়েছে ১ হাজার ৫৩৮ জন। বর্তমানে রাঙ্গামাটিতে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ৪৬৭ জন।

উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের জেলার মধ্যে খাগড়াছড়ির পর সর্বশেষ জেলা হলো রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা। এই নিয়ে দেশের ৬৪ জেলায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়লো।