মাথার চিটচিটে ভাব দূর করতে

2

শ্যাম্পু করে বের হয়েছেন! তবে দিন পেরুনোর আগেই মাথা তৈলাক্ত। সমাধানের জন্য রয়েছে প্রাকৃতিক পন্থা।

চিটচিটে মাথা সত্যিই বিরক্তিকর। এর সঙ্গে রয়েছে ময়লা-ধুলা মাথার ত্বকে আটকে যাওয়ার বিড়ম্বনা। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে রূপচর্চাবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে কয়েকটি প্রচলিত ও প্রতিষ্ঠিত পন্থা এখানে দেওয়া হল।

অ্যাপল সাইডার ভিনেগার: এর অ্যাসিটিক অ্যাসিড মাথার ত্বক পরিষ্কার করে তৈলাক্তভাব দূর করতে সাহায্য করে। এটা চুলের গ্রন্থিতে ময়লা জমা দূর করে বাড়তি তেল উৎপাদন কমায়। চুল মসৃণ ও উজ্জ্বল করে। এক কাপ গরম পানিতে দুই টেবিল-চামচ অ্যাপল সাইডার ভিনেগার মেশান।

স্বাভাবিকভাবে শ্যাম্পু করার পরে সম্পূর্ণ চুলে এই মিশ্রণ লাগান। হালকা মালিশ করে কয়েক মিনিট পরে ধুয়ে ফেলুন। ভালো ফলাফলের জন্য সপ্তাহে দুবার ব্যবহার করুন।

বেকিং সোডা: মাথার ত্বকের চিটচিটে ভাব দূর করতে বেকিং সোডা সাহায্য করে। এটা কেবল তেলের উৎপাদন নিয়ন্ত্রণ করে না পাশাপাশি বাড়তি তেল শোষণও করে। মনে রাখবেন বেইকিং সোডা পাতলা করে মিশিয়ে ব্যবহার করতে হয়।

এক লিটার পানিতে দুতিন টেবিল-চামচ বেইকিং সোডা মিশিয়ে পুরো চুল ভিজিয়ে নিন। ২০ থেকে ৩০ মিনিট অপেক্ষা করে সাধারণ শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। ভালো ফলাফলে জন্য সপ্তাহে তিনবার ব্যবহার করুন।

অ্যালোভেরা জেল: ভিটামিন ও খনিজ সমৃদ্ধ অ্যালো ভেরা মাথার ত্বক দূষণ মুক্ত করে এবং জীবাণু থেকে রক্ষা পেতে সাহায্য করে। তাছাড়া এটা তেল উৎপাদন নিয়ন্ত্রণ করে, চুল মসৃণ ও কোমল রাখে। আর গোড়া শক্ত করে।

এক টেবিল-চামচ তাজা অ্যালো ভেরার সঙ্গে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে মাথার ত্বকের লাগান। ১০ থেকে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে সাধারণ শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে নিন। সময় না থাকলে শ্যাম্পুর সঙ্গে এক টেবিল-চামচ অ্যালো ভেরা জেল মিশিয়ে সাধারণ ভাবেই ধুয়ে নিন। এটা একই সঙ্গে চুল পরিষ্কার করে ও মসৃণ রাখে।

মেথি: মাথার ত্বকের পিএইচয়ের মাত্রা ঠিক রেখেই বাড়তি তেল শুষে নেয়। এর উজ্জ্বলতা বাড়ানোর উপাদান প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান যুগিয়ে চুলকে প্রাকৃতিকভাবে মসৃণ করে।

দুই টেবিল চামচ বেসন ও মেথি নারিকেল দুধের সঙ্গে মেশান। মিশ্রণটি মাথার ত্বকে মালিশ করে লাগান। এক ঘণ্টা পর শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ভালো ফলাফল পেতে সপ্তাহে একবার অনুসরণ করুন।