সেন্সরবোর্ডের জন্য বদলে গিয়েছিল ‘শোলে’র শেষদৃশ্য

20

৪৩ বছর পর পরিচালক বললেন, সেন্সর বোর্ডের নির্দেশেই জনপ্রিয় এ সিনেমার শেষদৃশ্য বদলেছিলেন।অমিতাভ বচ্চন-ধর্মেন্দ্র-হেমা মালিনী-জয়া বচ্চন অভিনীত ‘শোলে’ বলিউড চলচ্চিত্রের ইতিহাসে অন্যতম শ্রেষ্ঠ জনপ্রিয় সিনেমা ।

‘শোলে’র শেষদৃশ্য সেন্সর বোর্ডের নির্দেশেই বদলেছিলেন পরিচালক রমেশ সিপ্পি। শেষদৃশ্যে তিনি অন্যরকম কিছু করতে চেয়েছিলেন!

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানায়, সম্প্রতি পুনে ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে ‘পিআইএফএফ ডিস্টিংগুইসড পার্সোনালিটি অ্যাওয়ার্ড’ গ্রহণ করেন প্রবীণ চলচ্চিত্র পরিচালক রমেশ সিপ্পি ।

এই উৎসবের রাজকাপুর প্যাভিলিয়নে, এক সাক্ষাৎকারে ভারতীয় সেন্সর বোর্ড প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “ ‘শোলে’র শেষটা আমি অন্য রকম কিছু শ্যুট করেছিলাম, ঠাকুর গব্বরকে মেরে ফেলবে। কিন্তু সেন্সর বোর্ড অনুমতি দেয়নি। পা দিয়ে গব্বরকে ঠাকুরের মেরে ফেলার ঘটনা মেনে নিতে পারেনি বোর্ড।”

১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্ট চলচ্চিত্রটি মুক্তি পায় । ছবি মুক্তির ওই সময়ে ভারতে জরুরি অবস্থা চলছিল।

পরিচালক আরও বলেন, “সেন্সরের অনুমতি না পেয়ে আমি চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলাম। ঠাকুর তবে কী ভাবে মারবে গব্বরকে? তার হাত থাকলে তো গুলি করে মারতে পারতো।
অতিরিক্ত অ্যাকশনেও খুশি ছিল না বোর্ড। তারা বলেছিল, শেষটা বদলাতেই হবে। আমি অনিচ্ছা সত্ত্বেও তাই করেছিলাম।”

ছবির শেষটা মনে আছে? ঠাকুরের, গব্বর সিংয়ের উপর বদলা নেওয়ার টানটান অ্যাকশন? হঠাৎ পুলিশ এসে উপস্থিত । তারা ঠাকুরকে বলে গব্বরকে ছেড়ে দিতে। কারণ আইন কেউ হাতে তুলে নিতে পারে না। পুলিশ হেফাজতে নেয় গব্বর সিংকে।

‘শোলে’ সিনেমায় সঞ্জীব কুমার ও আমজাদ খানের অভিনয় বিশেষভাবে নজর কেড়েছিল সবার। এই সিনেমার বেশ কিছু সংলাপ আজও মানুষের মুখে মুখে ঘোরে।