শিখদের তোপের মুখে সানি লিওন

82

বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওন ‘করনজিৎ কৌর: দ্য আনটোল্ড স্টোরি অব সানি লিওন’ এ নিজের গল্প বলতে প্রস্তুত। এদিকে ওয়েব সিরিজটির নাম নিয়ে শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক। শিরোমনি গুরুদুয়ারা প্রাবন্ধিক কমিটি এতে ‘কৌর’ শব্দের ব্যবহার নিয়ে আপত্তি তুলেছে।

আগামী ১৬ জুলাই থেকে সিরিজটির প্রচার শুরু হবে। শিরোমনি গুরুদুয়ারা প্রাবন্ধিক কমিটির মতে, কৌর খুব সম্মানজনক নাম। শিখ গুরুরা শিখ নারীদের এই নাম দেন। ওয়েব সিরিজে কৌর শব্দের ব্যবহার শিখদের অনুভূতিতে আঘাত করবে। কারণ শিখ গুরুদের কোনো শিক্ষাই অনুসরণ করেন না সানি লিওন। তাই ‘কৌর’ শব্দের ব্যবহার করার অধিকারও তিনি রাখেন না। ‘কৌর’ পদবি ব্যবহার করার জন্য সানি লিওনকে জনসমক্ষে ক্ষমা চাইতে হবে।

ইস্ত্রি অকালি দলের প্রেসিডেন্ট বিবি জাগির কৌরও শ্রীমণি গুরুদ্বার প্রাবন্ধিক কমিটির সঙ্গে একমত। তার মতে, সানি নাকি নিজের বায়োপিকের সাফল্যের জন্য ‘কৌর’ পদবি ব্যবহার করেছেন। সানি জানেন না যে তার এই ‘কৌর’ ব্যবহার শিখদের ভাবাবেগে আঘাত করবে।

নার্স হওয়ার যখন পড়াশোনা করছিলেন সানি, তখন এক ডান্সার বন্ধুর মারফত আলাপ হয় এক ম্যাগাজিনের ফটোগ্রাফারের সঙ্গে। সেখান থেকেই খোলে পর্ন ইন্ডাস্ট্রির দরজা। রাতারাতি বদলে যায় তার জীবন। আবার সে ইন্ডাস্ট্রির শীর্ষে থাকতে থাকতেই চলে আসেন বিগ বসের আসরে৷ সেখান থেকে একটার পর একটা বলিউডি ছবিতে অভিনয় করে চলেছেন।

সানি নিজেও জীবনের এই যাত্রাপথ তুলে রাখতে চান। কারণ বলিউডের একজন অভিনেত্রী হওয়া সত্ত্বেও তার অতীত নিয়ে কৌতূহলের শেষ নেই। অনেকেই ভাবেন, তিনি বোধহয় পর্নস্টারই হতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সত্যিটা কি তা জানা যাবে এই সিরিজে। আপাতত ‘কৌর’ নিয়ে সমস্যায় লিওন। সিরিজে কৌর থাকবে নাকি ছেঁটে ফেলা হবে তা শুধু এখন সময়ের অপেক্ষায়।