ভারতের কাছে হারার পর আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন পাকিস্তান কোচ

দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে বিশ্বকাপে ফের ঘুরে দাঁড়িয়েছে পাকিস্তান৷ কিন্তু ভারতের কাছে হারের ক্ষত এখনও শুকোয়নি পাক ক্রিকেটারদের৷ ব্যক্তিক্রমী নন, পাকিস্তানের প্রোটিয়া কোচও৷ নিউজিল্যান্ডের ম্যাচের আগে প্রাক সাংবাদিক বৈঠকে পাক কোচ মিকি আর্থারের কথাতেও উঠে এল ভারত-পাক ম্যাচ৷

১৬ জুন, ম্যাঞ্চেস্টারে ভারত-পাক মহারণ ছিল বিশ্বকাপের ইউএসপি৷ ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ভারতের কাছে হারের পর আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন পাকিস্তান কোচ মিকি আর্থার৷ তিনি বলেন, ‘গত রবিবার ভারতের কাছে হারের পর আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলাম৷ কিন্তু এটা ছিল বিশ্বকাপে আমাদের খারাপ পারফরম্যান্স৷ এখানেই আমাদের বিশ্বকাপ শেষ হয়ে যায়নি৷ তাই আমরা আজ এই জায়গায় দাঁড়িয়ে৷’

ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের ভারতের কাছে ৮৯ রানে হারে পাকিস্তান৷ এর ফলে ১৯৯২ থেকে বিশ্বকাপে সাতবারের সাক্ষাতে কোনও বারই জয়ের স্বাদ পায়নি পাকিস্তান৷ বৃষ্টিবিঘ্নিত বিশ্বকাপের হাইভোল্টেজ ম্যাচে টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ভারত নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৩৬ রান তোলে৷ দুরন্ত শতরান করেন রোহিত শর্মা৷ তাঁকে যোগ্য সঙ্গত করে ব্যক্তিগত হাফ-সেঞ্চুরির গণ্ডি টপকান লোকেশ রাহুল ও বিরাট কোহলি৷ মহম্মদ আমের ছাড়া পাকিস্তানের বাকি বোলাররা নজর কাড়তে ব্যর্থ হন৷

জবাবে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তান ৩৫ ওভারে ৬ উইকেটের বিনিময়ে ১৬৬ রান তুলেল বৃষ্টির জন্য খেলা বন্ধ হয়ে যায়৷ নতুন করে খেলা শুরু হওয়ার পর ডাকওয়ার্থ-লুইস নিয়মে পাকিস্তানের সামনে জয়ের লক্ষ্য দাঁড়ায় ৪০ ওভারে ৩০২ রানের৷ অর্থাৎ বাকি ৫ ওভারে ৪ উইকেট হাতে নিয়ে ১৩৬ রান করতে হত পাকিস্তানকে৷ ভারতের জয় কার্যত তখনই নিশ্চিত হয়ে যায়৷ নিয়মরক্ষার শেষ পাঁচ ওভার ব্যাট করে পাকিস্তান কোনও উইকেট না-হারিয়ে তাদের ইনিংসে আরও ৪৬ রান যোগ করে৷ অর্থাৎ ৪০ ওভারে ৬ উইকেটের বিনিময়ে ২১২ রান তোলে পাকিস্তান৷

ভারতের কাছে হারের এক সপ্তাহ পর অর্থাৎ গত রবিবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে মাঠে নামে সরফরাজরা৷ কিন্তু প্রোটিয়াদের হারিয়ে ফেরে ছন্দে ফেরে পাকিস্তান৷ এ প্রসঙ্গে পাক কোচের বক্তব্য, ‘ভারতের কাছে হারের পর ছেলেরা ভীষণ হতাশ ছিল৷ মিডিয়া ও সমর্থকদের সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিক্রিয়া যথাযোগ্য ছিল না৷’

বুধবার নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে মাঠে নামছে পাকিস্তান৷ ৬ ম্যাচ ৫ পয়েন্ট নিয়ে সাত নম্বরে থেকে কিউয়িদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে নামছে সরফরাজ অ্যান্ড কোং৷ নিউজিল্যান্ডের কাছে হারলে অবশ্য ২০১৯ বিশ্বকাপ থেকে ছুটি হয়ে যাবে পাকিস্তান৷

0

Related posts

Leave a Comment