‘সূর্য মুখী’ ছাতা

174

 

সাগর তীরে শুয়ে সাগরে ঢেউ দেখার সময় রোদ থেকে বাঁচতে মাথার উপর ব্যবহার করা হয় ছাতা। দিনের সময় যতো পার হয় পৃথিবীর ঘূর্ণনের কারণে বদলায় সূর্যের অবস্থান। রোদ থেকে বাঁচতে তখন বদলাতে হয় ছাতার অবস্থানও। এবার হয়তো এমন বিড়ম্বনা থেকে রেহাই পাওয়া যাবে।

যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাসে শুরু হয়েছে ভোক্তা ইলেকট্রনিকস পণ্য প্রদর্শনী অনুষ্ঠান সিইএস-এর এ বছরের আসর সিইএস ২০১৮। মঙ্গলবার এই আয়োজনে প্রদর্শন করা হয়েছে এমন নতুন এক ছাতার ধারণা।

সূর্য যেদিকে যায় সূর্যমুখী ফুলও সেদিকেই মুখ করে থাকে। এই ছাতার কাজও একই রকম। তাই এর নামও দেওয়া হয়েছে ‘সানফ্লাওয়ার’। শেডক্রাফট নামের একটি স্টার্টআপ এই ছাতা উন্মোচন করেছে। এটি সৌরচালিত আর এটি সূর্যের অবস্থানকে শনাক্ত করতে পারে। সূর্যের অবস্থান শনাক্ত করে এটি সবসময় সেই অনুযায়ী ছায়া দেবে এটি, খবর ব্যবসা-বাণিজ্যবিষয়ক মার্কিন প্রকাশনা বিজনেস ইনসাইডার-এর।

এখানেই শেষ হয়নি এই ছাতার কাজ। এটি ওয়াই-ফাইয়ের মাধ্যমে ব্যবহারকারীর বাড়ির নেটওয়ার্কে যুক্ত হতে পারবে। এর ফলে ব্যবহারকারী অ্যামাজন অ্যালেক্সা ও গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট ব্যবহৃত স্মার্ট-হোম ডিভাইসগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন। এমনকি বাড়িতে রাখা ক্যামেরার সহায়তায় সৈকতে বসে বাড়িতে নজরও রাখা যাবে।

এই ছাতা দিয়ে ফোন চার্জ দেওয়া যাবে আর সেলুলার সেবা চালু করে সৈকতে একে ওয়াই-ফাই হটস্পট হিসেবেও ব্যবহার করা যাবে।

মঙ্গলবার থেকেই সানফ্লাওয়ার-এর জন্য অর্ডার নেওয়া শুরু হয়েছে। ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত এর দাম ধরা হচ্ছে ৫২২০ ডলার আর এরপর এর দাম হবে আট হাজার ডলার।