সিঙ্গাপুরে ১৫ লাখ মানুষের স্বাস্থ্য তথ্য বেহাত

67

সিঙ্গাপুরে ১৫ লাখ মানুষের ডেটা হাতিয়ে নিয়েছে হ্যাকাররা। সংখ্যাটা দেশটির মোট জনসংখ্যার প্রায় এক চতুর্থাংশ বলে জানিয়েছেন দেশটির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

হ্যাকাররা সরকারের স্বাস্থ্য ডেটাবেইসের নিরাপত্তা লঙ্ঘন করে “সচেতনভাবে লক্ষ্য নির্ধারণ করে একটি সু-পরিকল্পিত” আক্রমণ চালিয়েছে বলে সিঙ্গাপুর সরকারের বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

আক্রমণের লক্ষ্যে পরিণত হওয়া ব্যক্তিরা ২০১৫ সালের ১মে থেকে চলতি বছরের ৪ জুলাইয়ের মধ্যে ক্লিনিকে সেবা নিতে গিয়েছেন। হ্যাকারদের হাতিয়ে নেওয়া ডেটায় তাদের নাম ও ঠিকানা রয়েছে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে তাদের ব্যবহৃত ওষুধের তথ্যও বেহাত হয়েছে, তবে মেডিকেল রেকর্ড আক্রান্ত হয়নি বলে বিবিসি’র প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

সিঙ্গাপুর সরকারের দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়, “বহির্বিভাগের প্রায় ১,৬০,০০০ জন রোগীকে দেওয়া ওষুধের তথ্য বেহাত হয়েছে।”

“এই রেকর্ডগুলো ক্ষতিগ্রস্থ হয়নি, এর মানে কোনো তথ্য পরিবর্তন বা মুছা হয়নি। রোগ নির্ণয়, পরীক্ষার ফলাফল বা চিকিৎসকদের নোট-এর মতো অন্য কোনো ডেটার নিরাপত্তা লঙ্ঘিত হয়নি। জনস্বাস্থ্য সেবার অন্য আইটি ব্যবস্থাগুলোতে এই ধরনের কোনো নিরাপত্তা লঙ্ঘনের প্রমাণ পাওয়া যায়নি।”

সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন লোংয়ের নেওয়া ওষুধসহ চিকিৎসা সম্পর্কিত ডেটা “বিশেষভাবে ও বারবার লক্ষ্য করা হয়েছে”। লি দুইবার ক্যান্সার আক্রান্ত হয়েছিলেন।

দেশটির স্বাস্থ্য সেবাদাতা দুটি বড় সরকারি প্রতিষ্ঠানের একটি হচ্ছে সিংহেলথ। এই প্রতিষ্ঠানের একটি কম্পিউটার ম্যালওয়্যারে আক্রান্ত হয়েছে। আর এর মাধ্যমে হ্যাকাররা ওই ডেটাবেইসে প্রবেশাধিকার পায়।

সরকারের তথ্যমতে, চলতি বছর ২৭ জুন থেকে ৪ জুলাইয়ের মধ্যে এই আক্রমণ সংঘটিত হয়েছে।

সিঙ্গাপুরভিত্তিক দৈনিক স্ট্রেইটস টাইমস-এর প্রতিবেদনে বলা হয়, সিংহেলথ সাময়িকভাবে তাদের ২৮ হাজার কম্পিউটারের সবগুলোতে ইন্টারনেট ব্যবহারে কর্মীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে।