বঙ্গোপসাগরে দুই লাইটার জাহাজডুবি

বঙ্গোপসাগরের কুতুবদিয়া চ্যানেলের ঠেঙ্গারচর এলাকায় গভীর সমুদ্রে আড়াই হাজার মেট্রিক টন সিমেন্ট ক্লিংকারসহ এমভি টিটু-১৮ এবং এমভি টিটু-১৯ নামে দু’টি জাহাজ ডুবে গেছে। বুধবার দুপুরে বিরূপ আবহাওয়ায় কুতুবদিয়ায় অবস্থানরত মাদার ভ্যাসেল থেকে ক্লিংকার নিয়ে আসার পথে লাইটার দুটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। দুর্ঘটনাস্থল থেকে জাহাজ দু’টির ২১ নাবিককে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। তবে দুইজন নাবিক নিখোঁজ আছে বলে জানা যায়। তাদের উদ্ধারে নৌবাহিনীর জাহাজ কাজ করছে।

জানা যায়, লাইটা জাহাজ দু’টি দুর্ঘটনার কবলে পড়ার পর বাংলাদেশ নৌবাহিনীর দুর্জয়, শৈবাল, সুরভি ও সোয়াডস একটি জাহাজের ১০ জন নাবিককে উদ্ধার করে। তাছাড়া অন্য জাহাজের ১১ নাবিকদের উদ্ধার করে জরুরি ভিত্তিতে বিমানবাহিনীর দু’টি হেলিকপ্টার গিয়ে চট্টগ্রামের জহুরুল হক ঘাঁটিতে আনা হয়।

বিআইডব্লিটিএ চট্টগ্রামের উপ-পরিচালক মো. সেলিম বলেন, ‘তিন নম্বর সতর্ক সংকেতের মধ্যে কুতুবদিয়া চ্যানেলের ঠেঙ্গারচর এলাকায় গভীর সমুদ্রে জাহাজ দুটি ডুবে যায়। বন্দরের বহির্নোঙরে মাদার ভ্যাসেল থেকে ক্লিংকার নিয়ে জাহাজ দুটি নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জ যাওয়ার পথে কুতুবদিয়া চ্যানেলের কাছে প্রচন্ড ঢেউয়ের কবলে পড়ে। এতে একটি জাহাজের তলা ফেটে যায় এবং আরেকটি জাহাজের হ্যাজ ভেঙে পড়ে।’

0

Related posts

Leave a Comment