নিউইয়র্কে জমকালো বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল ৫ আগস্ট

179

এবার গ্রীষ্মে গতানুগতিক মেলার বাইরে ভিন্ন আঙ্গিকে মেলার আয়োজন করেছে বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল ইউএসএ ইনক। আগামী ৫ আগস্ট রোববার নিউইয়র্কের জ্যামাইকার সুসান বি. অ্যান্থনি স্কুল মাঠে বেলা ১১টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত চলবে এই মেলা।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের মেজবান রেস্টুরেন্ট মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যালের কর্মকর্তারা মেলা আয়োজনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।

তারা বলেন, এবারের বাংলাদেশ ফেস্টিভ্যাল ও ওপেন এয়ার কনসার্টে কমপক্ষে ১০ হাজার লোকের সমাগম হবে। মেলার চারপাশে থাকবে বাহারী পণ্য ও সুস্বাদু খাবারের স্টল। মেলায় আসা শিশুদের জন্য থাকবে নানান রকম রাইডের ব্যবস্থা।

আর মেলার বিশেষ আকর্ষণ থাকছে মনমাতানো সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। প্রবাসের নতুন প্রজন্মকে নিয়ে থাকবে গীতিআলেখ্য ও নাচ। মিউজিকে থাকবে মাটি ব্যান্ড এবং শব্দ ব্যবস্থাপনায় থাকবে সাউন্ড গিয়ার। মেলাকে আরো আকর্ষণীয় করতে থাকছে র‌্যাফেল ড্র।

সংবাদ সম্মেলনে আয়োজকরা জানান, বাংলাদেশের জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী শাহনাজ বেলী ও সেলিম চৌধুরী এবং প্রবাসের জনপ্রিয় শিল্পী তনিমা হাদী, শাহ মাহবুব, কৃষ্ণা তিথি, রোজকসানা মির্জা, কামরুজ্জামান বকুল, চন্দ্রা রায়, শামীম সিদ্দিকী, রানো নেওয়াজ, সোনিয়া সুইটি, নাজিয়া লিনা, মারিয়া মৌ মেলায় সঙ্গীত পরিবেশন করবেন। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করবেন সংবাদ পাঠক শামসুন নাহার নিম্মি।

এ ছাড়া মেলায় স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের দুই কণ্ঠযোদ্ধা রথীন্দ্রনাথ রায় ও শহীদ হাসানকে বিশেষ সম্মাননা দেয়া হবে বলে জানান আয়োজকরা।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন মেলার আহ্বায়ক এবাদ চৌধুরী, সদস্য সচিব মাকসুদুল এইচ. চৌধুরী, সিনিয়র নির্বাহী যুগ্ম আহ্বায়ক বিলাল চৌধুরী, প্রধান সমন্বয়কারী এএফএফ মিসবাহুজ্জামান, সমন্বয়কারী আমানত হোসেন, সঙ্গীতশিল্পী কৃষ্ণা তিথি ও রানো নেওয়াজ। আরো উপস্থিত ছিলেন মেলার গ্র্যান্ড স্পন্সর এনওয়াই ইন্স্যুরেন্সের প্রেসিডেন্ট মো. শাহনেওয়াজ।