রংপুরে স্কুলছাত্রের মৃত্যু: বাসচালক ও সহকারী গ্রেপ্তার

12

যে বাসের চাপায় স্কুলছাত্র তানভীর আহমেদ জিয়নের মৃত্যু হয়, ভাই-বোন পরিবহনের সেই বাসের চালক ও তার সহকারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

কোতোয়ালি থানার ওসি মুক্তারুল আলম জানান, রোববার রাতে রংপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে বাসচালক ইনসান আলী শানু (৪৫) এবং তার সহকারী বাদশা মিয়াকে (৪০) গ্রেপ্তার করা হয়।

“ইনসানের হালকা যানবাহন চালানোর লাইসেন্স থাকলেও সেটা দিয়েই সে বাস চালাচ্ছিল। তাছাড়াওই বাসের ফিটনেস সার্টিফিকেটও নেই।”

বাসচালক, তার সহকারী এবং বাস মালিকের বিরুদ্ধে মামলা করার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান ওসি মুক্তারুল।

রোববার সকালে রংপুর শহরের ঘাঘটপাড়ায় রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়কে ভাই-বোন পরিবহনের একটি বাসের চাপায় কালেক্টরেট স্কুল অ্যাণ্ড কলেজের দশম শ্রেণির ছাত্র তানভীর আহমেদ জিয়নের মৃত্যু হয়।

ওই দুর্ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী এবং বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা তিন ঘণ্টা রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায়। এ সময় অন্তত ১০টি বাস ভাঙচুরের শিকার হয়।

এই বিক্ষোভের এক পর্যায়ে পুলিশের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনাও ঘটে। পরে পুলিশ কাঁদুনে গ্যাসের শেল ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।