নুসরাত স্মরণে সোনাগাজীতে বৈশাখী উৎসব স্থগিত

5

সোনাগাজীর চিত্রটা আর অন্যসব বছরের চেয়ে আলাদা। বিগত বছরে যেখানে হয়েছিল আনন্দ উৎসব, আজ সেখানে নির্মমতার কষ্ট বয়ে বেড়াচ্ছে মানুষ। তাই তো সেখানে রবিবার পয়লা বৈশাখে নেই কোনও উৎসব। সকালে হয়নি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। ছিল না পান্তা-ইলিশের আয়োজন।

ফেনীর সোনাগাজীসহ শহরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে কোথাও চোখে পড়েনি উৎসব আয়োজন। এবার উপজেলা প্রশাসন থেকেও বেশ কয়েকটি উৎসবের আয়োজন বাদ দেওয়া হয়েছে।

সকাল সাড়ে ৯টায় সোনাগাজী মো. ছাবের সরকারি পাইলট উচ্চবিদ্যালয় মাঠ থেকে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বর্ষবরণের মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হলেও তাতে ছিল শোকের ছায়া। সেখানে ফুটে উঠেছে নুসরাত হত্যার প্রতিবাদ।

শোভাযাত্রায় অংশ নেওয়া কয়েকজন বলেন, তারা শোভাযাত্রায় অংশ নিয়েছেন বটে, কিন্তু উৎসবটা পরিপূর্ণ লাগছে না। যেদিন নুসরাত হত্যায় জড়িতদের বিচার হবে সেদিন তারা আনন্দিত হবেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. সোহেল পারভেজ বলেন, অন্যান্যবার উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে, উপজেলা চত্বরে পান্তা-ইলিশ, মেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কিন্তু এবার নুসরাতের স্মরণে উৎসব আয়োজন স্থগিত করা হয়েছে।

নুসরাতের কাছের মানুষগুলো বলছে, গত বছর এই দিনেও নুসরাত ছিলেন। কিন্তু আজ তিনি নেই। নুসরাত ছাড়া পয়লা বৈশাখ তাদের কাছে বিষণ্ণতায় ভরা।

সোনাগাজীর ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলার শ্লীলতাহানির প্রতিবাদ করায় আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা হয় আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে। প্রতিবাদী নুসরাতকে হারিয়ে আজ সারা দেশ শোকাহত।