টেকনাফে অস্ত্রধারী রোহিঙ্গাদের গুলিতে যুবক নিহত

15

টেকনাফের নয়াপাড়া শরণার্থী শিবিরে অস্ত্রধারী রোহিঙ্গাদের গুলিতে এক রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় আরও একজন গুলিবিদ্ধ হয়ে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মঙ্গলবার (১২ মার্চ ) রাত ৯টার দিকে টেকনাফের নয়াপাড়া শরণার্থী শিবিরের এইচ ব্লকে এ ঘটনা ঘটে।

নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পের পুলিশের এসআই মো. কবির হোসেন স্বশস্ত্র রোহিঙ্গা গ্রুপের হামলায় একজন নিহত ও একজন আহতের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ সূত্র ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, সম্প্রতি র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত স্বশস্ত্র রোহিঙ্গা দলের নেতা নুরুল আলমের অনুসারী সাদেক, সেলিম, রফিক, নুরছালাম ও জকিরের নেতৃত্বে একদল স্বশস্ত্র রোহিঙ্গা দুবৃর্ত্ত গ্রুপ এইচ ব্লকে এসে অতর্কিতে হামলা করে।

হঠাৎ করে গুলির শব্দে আতংকিত সাধারণ রোহিঙ্গারা প্রায় আধা ঘন্টা পর বের হয়ে গুলিবিদ্ধ দুই রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করে।

প্রথমে শিবিরের হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক একজনকে মৃত ঘোষনা করেন।

নিহত হোছন প্রকাশ নিবন্ধিত রোহিঙ্গা শিবিরের আজিম উল্লাহ ছেলে ও এইচ ব্লকের ৬৪৪ সেডের ৬ নম্বর রুমের বাসিন্দা। তার এমআরসি নম্বর ৬১০০১।

আহত মোহাম্মদ ইলিয়াছ একই ব্লকের মৃত শামসুল আলমের ছেলে। তার সেড নম্বর ৬৪৬, রুম নম্বর ২২ ও এমআরসি নম্বর ১২৩৬৫।

কি কারনে এ হত্যাকান্ড সংঘঠিত হয়েছে তাৎক্ষনিকভাবে তা কেউ জানাতে পারেনি।

অস্ত্রধারীদের ধরতে পুলিশের অভিযান চলছে।

প্রসঙ্গত নয়াপাড়া রেজিষ্ট্রার্ড রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির ও তার পাশের নতুন রোহিঙ্গাদের শালবন রোহিঙ্গা শিবিরে সম্প্রতি অস্ত্রধারী রোহিঙ্গাদের তৎপরতা আশংকাজনকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় স্থানীয় বাসিন্দারা এই দুইটি শিবিরে রাত্রীকালিন সেনা ক্যাম্প স্থাপনের দাবী জানিয়ে আসছিলেন।