অামি যখন বৃষ্টিতে প্রতিবাদ করেছিলাম তখন সরকার প্রশ্নফাঁসের কথা স্বীকারও করেনি : জাফর ইকবাল

26

শিক্ষামন্ত্রীর পদত্যাগ অথবা ইন্টারনেট বন্ধ করে প্রশ্নফাঁস ঠেকানো সম্ভব নয় মন্তব্য করেছেন অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেছেন, কীভাবে প্রশ্ন ফাঁস হচ্ছে তা আগে খুঁজে বের করতে হবে। প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে গত কয়েক বছর ধরেই সোচ্চার অবস্থানে থাকা এই লেখক বলেন, যখন তিনি শহীদ মিনারে বৃষ্টিতে ভিজে আন্দোলন করেছেন, সরকার তখন প্রশ্নফাঁসের কথা স্বীকারও করেনি।

তিনি আরো বলেন, নিরাপদ প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে প্রশ্নপত্র প্রস্তুত করা হয় না বলেই প্রশ্নপত্র ফাঁস হচ্ছে।  বলে জানিয়েছেন শিক্ষাবিদ ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল।

বুধবার সিলেটের মীরেরময়দানে বিশ্ব বেতার দিবসের অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নে এ কথা বলেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের এই শিক্ষক।

তিনি বলেন, “শিক্ষামন্ত্রীর পদত্যাগ এর সঠিক সমাধান নয়। প্রশ্নফাঁসের মূল কারণ উদ্ঘাটন করে এর সমাধান করাটাই সব চেয়ে বেশি প্রয়োজন।”

চলতি এসএসসিতে এই পর্যন্ত সবগুলো বিষয়েরই প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে। পরীক্ষা শুরুর আগেই সেই প্রশ্ন চলে এসেছে ফেইসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে।

দেশজুড়ে সমালোচনার মুখে প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে পরীক্ষা শুরুর সময় ইন্টারনেটের গতি কমিয়ে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েও সরে আসে সরকার। এ নিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর পদত্যাগের দাবি উঠে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে।

জাফর ইকবাল বলেন, “এভাবে প্রশ্নফাঁস চলতে থাকলে এদেশে শিক্ষার কোনো গুরুত্ব থাকবে না। সরকারকে এগুলো বন্ধ করতে হবে।”

“কীভাবে প্রশ্ন ফাঁস রোধ করা যায়, সে বিষয়ে ভাবতে হবে, দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। যারা প্রশ্ন ফাঁসের সাথে জড়িত তাদের শাস্তি দিতে হবে।”

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী ইতোমধ্যে জাতীয় সংসদে জানিয়েছেন, প্রশ্নফাঁস বন্ধে পর্যায়ক্রমে এমসিকিউ তুলে দেওয়ার কথা ভাবছেন তারা।