ইরান ইস্যুতে যুক্তরাজ্যকে হুমকি যুক্তরাষ্ট্রের

10

ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল ইস্যুতে যুক্তরাজ্যকে রীতিমতো হুমকি দিয়েছেন এক মার্কিন কূটনীতিক।রবিবার যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত উনি জনসন বলেন, ইরান ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ না নিলে যুক্তরাজ্যকে বাণিজ্যিক ক্ষতির শিকার হতে হবে।

যুক্তরাজ্যের সানডে টেলিগ্রাফে এক নিবন্ধে এ রাষ্ট্রদূত লেখেন, ‘আমেরিকা (ইরানের ওপর) চাপ সৃষ্টি করছে এবং আমরা যুক্তরাজ্যকে আমাদের পাশে চাই। ২০১৫ সালের ত্রুটিপূর্ণ চুক্তি থেকে সরে দাঁড়ানোর সময় হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘ব্রিটেনকে তাদের ব্যাপক কূটনৈতিক ক্ষমতা ও প্রভাব কাজে লাগানোর আহ্বান জানাচ্ছি আমরা এবং একটা সত্যিকার সর্বাত্মক চুক্তি করার বৈশ্বিক চেষ্টায় যে নেতৃত্ব আমরা দিচ্ছি, তাতে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’ যুক্তরাষ্ট্রের এ আহ্বান উপেক্ষা করে ইরানের পরমাণু চুক্তি রক্ষায় ইউরোপের সঙ্গে থাকলে যুক্তরাজ্যকে ‘মারাত্মক বাণিজ্যিক পরিণতি’ মুখে পড়তে হবে বলে সতর্ক করে দেন রাষ্ট্রদূত জনসন।

ইরান নিজেদের পরমাণু কার্যক্রম সীমিত করলে তাদের ওপর থেকে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হবে, এমন শর্তে দেশটি ২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, রাশিয়া, চীন ও জার্মানির সঙ্গে চুক্তি করে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এ চুক্তির বিরোধিতা করে গত মে মাসে যুক্তরাষ্ট্রকে এ চুক্তি থেকে প্রত্যাহার করে নেন। পরবর্তী পদক্ষেপ হিসেবে গত মঙ্গলবার তিনি ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করেন। সেই সঙ্গে তিনি এটাও জানান, ইরানের সঙ্গে যারা ব্যবসা করবে, তারা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ব্যবসা করতে পারবে না।

ইউরোপ ট্রাম্পের এ পদক্ষেপের বিরুদ্ধে। এমনকি যুক্তরাজ্য, জার্মানি ও ফ্রান্স বিবৃতি দিয়ে এ ব্যাপারে ‘আক্ষেপ’ জানায় এবং বলে, ইরানে ইউরোপীয় বিনিয়োগকারীদের সুরক্ষায় তারা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে। এ অবস্থায় যুক্তরাজ্যকে সরাসরি বাণিজ্যিক ক্ষতির মুখে ফেলার হুমকি দিলেন মার্কিন কূটনীতিক।