অনিক হত্যা: প্রধান আসামি মারুফ ৩ বছর পর গ্রেফতার

3

উত্তরার কিশোর রিয়াজুল হাসান অনিক হত্যার প্রধান আসামি মারুফ হোসেনকে প্রায় তিন বছর পর গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

মঙ্গলবার ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে ডিবির যুগ্ম-কমিশনার আব্দুল বাতেন এ গ্রেফতারের কথা জানান। এ সময় তিনি বলেন, রাজধানীর উত্তরা থেকে গত রবিবার রাতে মারুফকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মারুফ হত্যার দায় স্বীকার করেছে।

মারুফের বরাত দিয়ে যুগ্ম-কমিশনার আব্দুল বাতেন বলেন, ঘটনার সময়ে নিজ হাতে ধারালো ‘সুইচ গিয়ার’ ছুরি দিয়ে অনিককে সে আঘাত করে। পরে মারুফ নিজেই অনিককে নিয়ে হাসপাতালে যায়। সেখান থেকে মারুফ কৌশলে পালিয়ে যায়।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ২৭ মে বিকাল ৪টায় উত্তরার সেক্টর ৭ এর ২৫ নম্বর রোডে উঠতি বখাটেদের পাওয়ার গ্রুপের সজিব ও আকাশের নেতৃত্বে ৯ নম্বর সেক্টরের কিশোর অপুকে মারধর করে। এরই সূত্র ধরে ওইদিনই বিকাল সাড়ে ৫টায় সেক্টর-৭ এর জেরিন রোডে গ্রেফতারকৃত মারুফ ও তার সহযোগীরা ’সুইচ গিয়ার’ ছুরি দিয়ে অনিকের বুকের নিচে ডান পাশে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে।

এ ঘটনায় উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি হত্যা মামলা করা হয়। অনিকের বাবার নাম জসিম উদ্দিন। তাদের বাড়ি বাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায়। আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল অনিক। সে পরিবারের সঙ্গে উত্তরার সেক্টর-৭, রোড-২৪ এর ১২ নম্বর বাসায় থাকতো